Templates by BIGtheme NET
Home / সারাদেশ / সম্ভাব্য প্রার্থীরা কর কার্যালয়ে ছুটছেন

সম্ভাব্য প্রার্থীরা কর কার্যালয়ে ছুটছেন

চুয়াডাঙ্গার কর কার্যালয়টি পৌর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের পদচারণে মুখরিত। নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী ও সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থীদের কর পরিচিত নম্বর (টিআইএন) বাধ্যতামূলক করায় গত রোববার থেকে তাঁরা এখানে আসছেন।
কর অঞ্চল-৯ চুয়াডাঙ্গার উপকর কমিশনারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত রোববার সকাল থেকে গতকাল মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত মোট ১৬৫ জন প্রথমবারের মতো টিআইএন নম্বর সংগ্রহ করেছেন।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে চুয়াডাঙ্গা কর কার্যালয়, আয়কর আইনজীবীদের কার্যালয় ও কার্যালয়ের আশপাশে পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী, সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের ভিড় দেখা যায়। আয়কর আইনজীবী ওয়ালি উল আকরাম বলেন, তাঁর কাছে আসা বেশির ভাগই প্রথমবারের মতো টিআইএন নম্বর সংগ্রহ করছেন। শুধু নির্বাচনে বাধ্যতামূলক করায় টিআইএন নিতে আইনজীবী ও কর কার্যালয়ে ছুটছেন প্রার্থীরা।
বিভিন্ন পৌরসভার বেশ কয়েকজন সম্ভাব্য সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থীর কাছে টিআইএন বিষয়ে জানতে চাইলে তাঁরা এ বিষয়ে ধারণা নেই বলে জানান। নার্গিস বেগম নামে একজন বলেন, ‘সরকার (নির্বাচন কমিশন) বুলেচে তাই টিন নম্বর নিচ্চি। আমরা অতসপ বুজিনে বাপু।’
চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার সংরক্ষিত-২ (৪, ৫ ও ৬) ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী সুফিয়া খাতুন বলেন, টিআইএন নম্বর সংগ্রহ করতে তাঁর মোট তিন হাজার টাকা খরচ হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আরও কয়েকজন প্রার্থী এ বাবদ তাঁদের তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচের কথা বলেছেন। তবে কর কর্মকর্তাদের দাবি, টিআইএন নম্বর নিতে কারও কাছ থেকে কোনো ধরনের টাকা নেওয়া হচ্ছে না। আয়কর আইনজীবীদের কেউ ফি দিলে ভিন্ন কথা।
উপকর কমিশনার আবদুল খালেক গতকাল দুপুরে বলেন, ১৬৫ জন নতুন টিআইএন নম্বরধারীদের মধ্যে মাত্র পাঁচজন কর পরিশোধ করেছেন। বাকিরা শুধুই ভোটের প্রয়োজনে নম্বর নিয়েছেন। ওই ১৬০ জনের কাছ থেকে সরকার একটি টাকাও রাজস্ব পায়নি। টিআইএন নম্বর গ্রহীতাদের সরকার কর পরিশোধ বাধ্যতামূলক করেনি। তাই কেউ কর পরিশোধে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না।
মেয়র পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক তুষার ইমরান বলেন, তিনি নিজ দায়িত্বে পাঁচ হাজার টাকা কর পরিশোধ করেছেন।
উপকর কমিশনার আরও বলেন, যাঁরা কর দিয়ে টিআইএন নিচ্ছেন, তাঁদের ‘পরিশোধ করেছেন’ এবং যাঁরা শুধুই নম্বর নিচ্ছেন তাঁদের ‘পাওনা নাই’ উল্লেখ করে সনদ দেওয়া হচ্ছে। তবে ভবিষ্যতে টিআইএন নম্বরধারী সবাইকেই রিটার্ন দাখিলের জন্য বলা হবে।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful