Templates by BIGtheme NET
Home / বিদেশ / রাহুল গান্ধীর ব্রিটিশ নাগরিকত্ব নিয়ে বিতর্ক

রাহুল গান্ধীর ব্রিটিশ নাগরিকত্ব নিয়ে বিতর্ক

রাহুল গান্ধী একজন বৃটিশ নাগরিক, এ অভিযোগ তুলে তার  সদস্য পদ বাতিল করার দাবি তুলেছেন বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। প্রধানমন্ত্রীর কাছে চিঠি লিখে এ দাবি জানিয়েছেন তিনি। তবে অভিযোগের বিষয়ে মুখ খোলেননি রাহুল।

সুব্রহ্মণ্যম স্বামী বক্তব্যের সমর্থনে ব্রিটেনের কোম্পানি আইন অনুযায়ী দাখিল করা রাহুল গান্ধীর রিটার্ন জমা দিয়েছেন, যাতে রাহুল গান্ধীকে ব্রিটিশ নাগরিক হিসেবে পরিচয় দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে দেওয়া হয়েছে লন্ডনের একটি ঠিকানাও। রাহুল গান্ধীর দল অবশ্য দাবি করেছে দশ-বারো বছরের পুরনো ওই রিটার্ন পেশ করার সময় কোনও ভুল হয়ে থাকতে পারে।

ভারতে কংগ্রেস দলের ৪৫ বছর বয়সী নেতা রাহুল গান্ধীকে নিয়ে বিতর্ক অবশ্য নতুন কোনও ঘটনা নয়।

এ বছরের গোড়াতেই তার লম্বা সময় ধরে দেশের বাইরে আচমকা উধাও হয়ে যাওয়া নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। পরে  সেই অন্তর্ধান ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তার দলকে হিমশিম খেতে হয়েছে। পাশাপাশি তার বক্তৃতায় নানা ভুলভ্রান্তিকেও ব্যাখ্যা করা হয়েছে তার রাজনৈতিক অপরিপক্বতা হিসেবে।

যেমন রাহুল কখনও বলেছেন গুজরাটে প্রতি একজন বাচ্চার মধ্যে দুজন অপুষ্টিতে ভোগেন, কিংবা মেয়েরা ধর্ষণের শিকার বলতে গিয়ে বলে ফেলেছেন দুর্নীতির শিকার। কিন্তু এখন তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগটা উঠেছে সেটা অনেক বেশি গুরুতর।

ভারতীয় সংবিধানের নয়-নম্বর আর্টিকল অনুযায়ী দ্বৈত নাগরিকত্ব নেওয়াটা পুরোপুরি বেআইনি, অথচ ব্রিটেনে ব্যাকঅপস লিমিটেড নামে ২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠিত একটি কোম্পানির রিটার্ন দাখিল করতে গিয়ে সংস্থার ডিরেক্টর রাহুল গান্ধী নিজেকে ব্রিটিশ নাগরিক বলেই পরিচয় দিয়েছেন।

সে দেশের কোম্পানি রেজিস্ট্রারের দফতর থেকে সংগৃহীত নথি পেশ করে এই অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির সুব্রহ্মণ্যম স্বামী, গান্ধী পরিবারের বিদেশি যোগসাজশ নিয়ে যিনি আক্রমণ শানিয়ে যাচ্ছেন বহু বছর ধরে।

তিনি বলেছেন, ‘এই রিটার্নে সবচেয়ে বড় অপরাধটা হল তিনি নিজের নাগরিকত্ব বৃটিশ বলে জানিয়েছেন। আর সেটা একবার নয়, একাধিকবার। আমি তাই প্রধানমন্ত্রী ও লোকসভার স্পিকারকে দিনকয়েক আগেই চিঠি লিখে জানিয়েছি, এটা সত্যি হলে তার পার্লামেন্টের সদস্যপদ যেন খারিজ করা হয়, আর আইন অনুযায়ী তিনি ভারতের নাগরিকও আর থাকতে পারেন না।’

এই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ সামনে আসার পরই কংগ্রেসকে রক্ষণাত্মক মনে হয়েছে।

যদিও দলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে বিহারে শোচনীয় পরাজয়ের হতাশা থেকেই বিজেপি এই ধরনের নোংরা আক্রমণে নেমেছে, কিন্তু তার পেশ করা নথিকে তারা জাল বলে উড়িয়ে দিতে পারেনি।

বরং দলের মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা বলেছেন, নাগরিকত্বের কলামে ব্রিটিশ লেখা থাকলে সেটা টাইপের ভুলে হয়ে থাকতে পারে।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful