Templates by BIGtheme NET
Home / জাতীয় / রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক অধ্যাপক খুন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক অধ্যাপক খুন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় বোয়ালিয়া থানার শালবাগান এলাকার বটতলা মোড়ে তাকে হত্যা করা হয় বলে বোয়ালিয়া থানার ওসি শাহাদাত হোসেন জানিয়েছেন।

হত্যাকাণ্ডস্থল থেকে ১৫০ গজ দূরে অধ্যাপক রেজাউলের বাড়ি।

কী কারণে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

নিহতের বোনের স্বামী মাহবুব আলম জানান, সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে রওনা দেন তিনি। বাড়ি থেকে ১৫০ গজ দূরে যাওয়ার পর মোটরসাইকেলযোগে দুই-তিনজন দুর্বৃত্ত পেছন থেকে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। তাৎক্ষণিকভাবে কাউকে চেনা সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের জন্য শালবাগান এলাকায় অপেক্ষা করছিলেন রেজাউল করিম। এ সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও গলা কেটে তাকে হত্যা করে। হত্যাকাণ্ডের পর দুজন দুর্বৃত্তকে রেলগেট এলাকা দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যেতে দেখা যায়।

 

এ হত্যাকাণ্ডের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থীও ওই এলাকায় বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। তবে তারা ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে পড়ায় দুর্বৃত্তদের আটক করতে পারেননি।

নিহতের ভাই সাজিদুল করিম বলেন, অধ্যাপক রেজাউল ‘কোমলগান্ধার’ নামে একটি সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক এবং ‘সুন্দরম’ নামে একটি সাংস্কৃতিক সংগঠনের উপদেষ্টা ছিলেন।

তার ভাইকে কেউ কখনও কোনো ধরনের হুমকি দিয়েছিল কি না, তা জানাতে পারেনি সাজিদুল করিম।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার সুশান্ত চন্দ্র রায় জানান, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে কোনো জঙ্গি সংগঠনের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, এই হত্যাকাণ্ডের সাথে সাম্প্রতিক সময়ের ব্লগার হত্যাকাণ্ডের মিল রয়েছে। ব্লগার হত্যার দায় স্বীকার করেছে ইসলামপন্থী জঙ্গি সংগঠন।

হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে।

দুই বছর আগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে খুন হন আরেক অধ্যাপক এ কে এম শফিউল ইসলাম।

সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক শফিউলকে হত্যার পর জঙ্গিদের দায় স্বীকারের খবর এলেও পরে পুলিশের তদন্তে জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার ধারণাটি নাকচ করা হয়।

পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্রে বলা হয়, ব্যক্তিগত বিরোধের কারণে হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছিলেন অধ্যাপক শফিউল।

তারও বেশ আগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আরো দুজন শিক্ষক হত্যাকাণ্ডের শিকার হন।

About Tareq Hossain

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful