Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / মরিনহোর পরের গন্তব্য ইউনাইটেড?

মরিনহোর পরের গন্তব্য ইউনাইটেড?

মাত্র দুদিন হলো চেলসি ছেড়ে গেছেন। এরই মধ্যে হোসে মরিনহোর পরের গন্তব্য কোথায় হবে এ নিয়ে চলছে জল্পনা-কল্পনা। রিয়াল মাদ্রিদ, পিএসজি থেকে শুরু করে হাভানা বিচে রৌদ্রস্নান— সবই উঠে আসছে জল্পনায়। তবে এরই মধ্যে শোনা যাচ্ছে, মরিনহো তাঁর পরের মিশনেও দৃষ্টি নিবদ্ধ করে রেখেছেন। আগামী মৌসুমের শুরুতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ডাগআউটে বসতে চান ৫২ বছর বয়সী এই পর্তুগিজ।
এখনো অবশ্য সবই গুঞ্জন। তবে গুঞ্জনটা ভিত্তি পাচ্ছে দুটি কারণে। এক. ইউনাইটেডের বর্তমান কোচ লুই ফন গাল তাঁর গদিতে ঠিক আগের মতো আরাম করে বসতে পারছেন না। যদিও তাঁর চুক্তির মেয়াদ আছে ২০১৬-১৭ মৌসুম পর্যন্ত; তবে ততদিন পর্যন্ত ফন গাল ইউনাইটেডে টিকে থাকবেন, এমন সম্ভাবনা দিনে দিনে ক্ষীণ হয়ে আসছে। চলতি মৌসুমে ইউনাইটেডের খেলার ধরনে খুব বেশি সন্তুষ্ট হতে পারছেন না সমর্থকেরা। সাফল্যও যে পাচ্ছে ‘রেড ডেভিল’রা, তা-ও নয়। লিগে ইউনাইটেড আছে চারে, ওদিকে ছিটকে পড়েছে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে। সব মিলিয়ে বলা যেতে পারে, পারফরম্যান্সে দ্রুত উন্নতি না এলে ইউনাইটেডে ফন গালের দিন ঘনিয়ে আসাটা অস্বাভাবিক নয়।
এরই মধ্যে পেপ গার্দিওলাকে আগামী মৌসুমে কোচ করার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে ইউনাইটেড। তবে গার্দিওলার জন্য আগে থেকেই ওত পেতে বসে আছে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটি। শোনা যাচ্ছে এই ‘প্রতিদ্বন্দ্বিতা’য় সিটিরই জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। সে ক্ষেত্রে স্প্যানিশ কোচকে টক্কর দেওয়ার জন্য মরিনহোর দিকেই ছুটতে পারে ইউনাইটেড।
আরও একটি কারণ হতে পারে ইউনাইটেডের প্রতি মরিনহোর অনুরাগ। এর আগে স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন বিদায় নেওয়ার পরপরই ইউনাইটেডের দায়িত্ব নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন মরিনহো। চেলসি অবশ্যই সব সময় তাঁর প্রথম পছন্দ ছিল। তবে ইউনাইটেডের কোচ হওয়ার স্বপ্নও তিনি লালন করে এসেছেন। এখন চেলসিই তাঁকে কোচের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় তাঁর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
ইএসপিএন জানিয়েছে, পর্তুগিজ কোচের ঘনিষ্ঠ সূত্রেরই খবর এটি। মরিনহো এই মুহূর্তে ইউনাইটেডেই দৃষ্টি নিবদ্ধ রেখেছেন। তাঁর প্রতিনিধিরা এরই মধ্যে শুরু করে দিয়েছেন কথাবার্তা। তবে ইউনাইটেডের ভেতরেই নাকি তাঁকে কোচ করে নিয়ে আসার ব্যাপারে দুটি ভিন্নমত আছে। কেউ কেউ মনে করেন মরিনহোর অতীত সব ‘কীর্তি’ ও তাঁর অতি-রক্ষণাত্মক খেলার ধরন ইউনাইটেডের সুনামের ক্ষতি করতে পারে। সাবেক ইউনাইটেড কিংবদন্তি স্যার ববি রবসন যেমন একবার বলেছিলেন, মরিনহো অতীতে যেসব কীর্তি গড়ে সমালোচিত হয়েছেন, সেগুলোর সবই ‘একজন ইউনাইটেড কোচ কখনো করবেন না’ তালিকায় পড়ে।
তবে ফন গালের পারফরম্যান্স এখন সেই সব ‘বিভেদ’ মুছে দিচ্ছে। এই মৌসুমটা হয়তো সময় পাবেন ডাচ কোচ। তবে মৌসুমের পরে ইউনাইটেডের ডাগআউটে নতুন কোচ দেখা যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি। আর এখানে ইউনাইটেডের পরিচালক বোর্ডেরও একটা দায়পূরণের ব্যাপার আছে। অ্যালেক্স ফার্গুসন পরবর্তী আড়াই বছরে তিনজন উঁচু মানের কোচ— গার্দিওলা, মরিনহো ও ইয়ুর্গেন ক্লপ তাঁদের হাত ফসকে বেরিয়ে গেছেন। ক্লপ এখন ইউনাইটেডের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের কোচ। গার্দিওলার সিটিতে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তাই মরিনহোকে এনে ‘দায়মোচন’ করতে চাচ্ছে ইউনাইটেড বোর্ড। এখানে মরিনহোর এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেসের সঙ্গে ইউনাইটেডের নির্বাহী ভাইস-চেয়ারম্যান এড উডওয়ার্ডের ভালো সম্পর্কও একটা বড় বিষয় হতে পারে।
দেখা যাক, মরিনহো মৌসুম শেষে কোথায় যান! ইউনাইটেডে এলে প্রিমিয়ার লিগের জন্য ভালোই হবে। গার্দিওলা, ক্লপ, মরিনহো, আর্সেন ওয়েঙ্গার— প্রিমিয়ার লিগ তখন বিশ্বসেরা সব কোচের মিলনমেলা হয়ে উঠবে। তথ্যসূত্র: ইএসপিএন।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful