Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / মনোহরের কথায় আশাবাদী ক্রিকেট

মনোহরের কথায় আশাবাদী ক্রিকেট

দায়িত্ব নিয়েছেন খুব বেশি দিন হয়নি। এরই মধ্যে ক্রিকেট বিশ্বের ‘মন জয়’ করা শুরু করেছেন আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর। দিন দু-এক আগে আইসিসিতে চলমান ‘তিন মোড়লে’র নীতির সমালোচনা করেছিলেন। পাশাপাশি আইসিসির নিয়ম-নীতির অনেক অসঙ্গতিরও বিপক্ষে নিজের মত জানিয়েছিলেন। এই মনোভাবে তিনি প্রশংসা পাচ্ছেন অতীতে আইসিসির এই বিতর্কিত ‘তিন মোড়ল’ তত্ত্বের বিরোধিতাকারীদের কাছ থেকে।
মনোহরের মন্তব্যে বেজায় খুশি হারুন লরগাত। তিন মোড়ল তত্ত্বের বিরোধিতা করে ক্রিকেট-দৃশ্যপটের বাইরে চলে যাওয়া এই প্রোটিয়া ক্রিকেট সংগঠকের আন্তরিক প্রশংসাই পাচ্ছেন শশাঙ্ক মনোহর। কেবল লরগাতই নয়। মনোহরের প্রশংসা ঝরেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান সিধাত ওয়েত্তিমুনি কণ্ঠেও। দুজনেই বলেছেন এই মনোহরই পারবেন আইসিসিকে ভালো কিছুর দিকে নিয়ে যেতে।
ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রধান হিসেবে পদাধিকার বলে সদ্যই আইসিসির চেয়ারম্যান হয়েছেন মনোহর। দায়িত্ব বুঝে নিতে দুবাইয়ে এসে দুদিন আগে আইসিসির বর্তমান নীতির সমালোচনা করে হইচই ফেলে দিয়েছেন তিনি। ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার—এই তিন মোড়লের ‘জোর জবরদস্তি মূলক খবরদারি’র নীতিকে তিনি যে মন থেকে সমর্থন করেন না, সেটা জানিয়ে দিয়েছেন অকপটেই। শুধু তাই নয়, আইসিসি বর্তমানে যে নীতিতে চলছে, তা সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ভারসাম্যহীনতা তৈরি করবে বলে মনে করেন তিনি। সমালোচনা করেছেন আইসিসির বর্তমান আয়-বন্টন ও দ্বিপাক্ষিক সিরিজ-নীতিরও। এমনকি যে নীতিমালার কারণে তিনি এই মুহূর্তে আইসিসির চেয়ারম্যান, তাঁর কণ্ঠে সমালোচনা ঝরেছে সেই নীতিরও।
যদিও এসব মতকে ‘একান্তই ব্যক্তিগত’ জানিয়ে পরিবর্তনের কোনো নির্দিষ্ট রূপরেখা দেননি আইসিসি প্রধান, তবু তাঁর বক্তব্য বিশ্বজুড়েই ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে বেশ আশা জাগিয়েছে। তাদের স্বস্তির জায়গাটা অন্য জায়গায়। ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ পদে বসে মনোহর যেন বেশিরভাগ ক্রিকেটপ্রেমীরই মনের কথাটা বলেছেন। তিন মোড়ল তত্ত্বসহ আইসিসির অন্যান্য নীতি নিয়ে যাদের মধ্যে ক্ষোভ আছে, তাদের সবার মনে একটা বিশ্বাস চলে এসেছে, পরিবর্তন হয়তো বা আসছে!
দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাতও এই একই বিশ্বাসে বিশ্বাসী। মনোহরের বক্তব্যে নিজের সমর্থন জানিয়ে বললেন, ‘মি. মনোহরের বক্তব্যে যদি আমি খুশি প্রকাশ না করি তাহলে মিথ্যা বলা হবে। এই মন্তব্যগুলো শুনে বেশ আনন্দ লাগছে। আর লোকটাকেও তো চিনি। আমার বিশ্বাস তিনি আইসিসির গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন আনবেন যাতে সদস্য দেশগুলো ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আরও উন্নতি করতে পারে।’
একই বিশ্বাস আছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের অন্তর্বর্তীকালীন কমিটির প্রধান সিধাত ওয়েত্তিমুনিরও। শশাঙ্ক মনোহরকে ‘বুদ্ধিমান মানুষ’ অভিহিত করে ওয়েত্তিমুনি বললেন, ‘কোনো বোর্ডের প্রধানের দৃষ্টিকোণ থেকে নয়, বরং সবার কথা মাথায় রেখে বৈশ্বিক দৃষ্টিকোণ থেকেই কথাগুলো বলেছেন শশাঙ্ক। আইসিসি প্রধান হিসেবে তাঁর বক্তব্যকেই আমার কাছে সঠিক বলে মনে হচ্ছে। শুনে খুবই ভালো লেগেছে।’
তাঁর চেতনা ভালো কিছুরই আশা জাগাচ্ছে, তাতে সমর্থনও পাচ্ছেন— পরিবর্তন কী আনতে পারবেন মনোহর? তথ্যসূত্র: এনডিটিভি।

আরও পড়ুন.

তিন মোড়লের সমালোচনায় নতুন আইসিসি চেয়ারম্যান স্বয়ং

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful