Templates by BIGtheme NET
Home / অন্যান্য / চার বছরের ছেলের পেটে ‘বাচ্চা’!

চার বছরের ছেলের পেটে ‘বাচ্চা’!

পেটে যন্ত্রণা নিয়ে নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিল শিশুটি। পরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চার বছরের ওই শিশুর পেটে  মিলে মৃত ভ্রুণ। তাও আবার হাত, পা, নখ এবং মাথার কিছুটা অংশ তৈরি হয়ে গিয়েছিল সেই ভ্রুণে। শেষ পর্যন্ত অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওই বালকের পেট থেকে সরানো হয় সেটি।

পশ্চিম মেদিনীপুরের ঝাড়গ্রামের একটি নার্সিংহোমে শিশুটির অস্ত্রোপচার করা হয়।

চিকিৎসক শীর্ষেন্দু গিরি জানিয়েছেন, পেটে যন্ত্রণা নিয়ে শিশুটি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিল। প্রথমে সন্দেহ করা হচ্ছিল, তার পেটে হয়ত টিউমার রয়েছে। কিন্তু সিটি স্ক্যান ও আল্ট্রাসোনোগ্রামে ধরা পড়ে মৃত ভ্রুণ। পরে গত রোববার রাতে তার অস্ত্রোপচার করা হয়।

বিনপুর থানার অন্তর্গত খারিকাবাঁধ গ্রামের ওই বালকের অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। তবে তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

জানা যায়, গর্ভাবস্থার প্রথম দিকে নাড়ির মাধ্যমে একটি ভ্রুণ অপরটির মধ্যে চলে যায় এবং পরজীবীর মতো সেখানেই রয়ে যায়। জন্মের পর অভ্যন্তরস্থ ভ্রুণটি পেটেই রয়ে যায়। এই অস্বাভাবিকতাকে চিকিতৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ‘শিশুর মধ্যে শিশু’। প্রতি ছয় লাখের মধ্যে একজনের ক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা ঘটে।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful