Templates by BIGtheme NET
Home / শিক্ষা / কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনশনে মেডিকেল ভর্তিচ্ছুরা

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনশনে মেডিকেল ভর্তিচ্ছুরা

মেডিকেলে আবার ভর্তি পরীক্ষার দাবিতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনশন করছেন আন্দোলনরত ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

পূর্বঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে আন্দোলনের ২৬তম দিন বুধবার সকাল ১০টা থেকে অনশন কার্যক্রম শুরু করেন তারা।

এরআগে মঙ্গলবার দুপুরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী বৃষ্টি উপেক্ষা করে সকাল ১০টা থেকে শহীদ মিনারের সামনে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নেন।

এদিকে মেডিকেলের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা বাতিল ও প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশনা চেয়ে করা রিটের শুনানি আগামী রোববার অনুষ্ঠিত হবে। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি ইকবাল কবির লিটনের সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন বেঞ্চে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে বলে রিটকারী আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ জানান। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এ রিট আবেদন করা হয়।

ডা. মুশতাকের ওএসডির আদেশ বাতিল: মেডিকেল ভর্তিচ্ছুদের আন্দোলনে সংহতি জানানো চিকিৎসক-গবেষক মুহাম্মদ মুশতাক হোসেনকে ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) করার একদিনের মাথায় সরকার ওই আদেশ বাতিল করেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার ডা. মুশতাকের ওএসডির আদেশ বাতিল করে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। এরশাদবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের নেতা, ডাকসুর সাবেক সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মুশতাক রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের (আইইডিসিআর) মেডিকেল সোসিওলজি বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার দায়িত্বে আছেন। মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ তুলে নতুন করে পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে শিক্ষার্থীদের যে আন্দোলন চলছে, গত শুক্রবার তাতে সংহতি জানিয়েছিলেন দেশে চিকিৎসকদের সবচেয়ে বড় সংগঠন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী কমিটির এই সদস্য। এর তিন দিনের মাথায় গত সোমবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক আদেশে ডা. মুশতাককে ওএসডি করে স্বাস্থ্য অধিদফতরে পাঠায়। ওই আদেশে বলা হয়, জনস্বার্থে এই আদেশ জারি করা হল এবং অবিলম্বে তা কার্যকর হবে।

মেডিকেলে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলে আসছেন, আন্দোলনকারীরা সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে চাইছে। কিন্তু দেশে চিকিৎসা গবেষণায় ডা. মুশতাকের ভূমিকা সম্পর্কে যারা জানেন, তাদের অনেকেই সরকারের সিদ্ধান্তে বিস্ময় প্রকাশ করেন।

এরপর মঙ্গলবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আরেক প্রজ্ঞাপন আসে, যাতে ওএসডি করার সেই আদেশ বাতিলের কথা জানানো হয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করার পর মুশতাক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খাদ্য ও পুষ্টি বিজ্ঞান ইন্সটিটিউটে ভর্তি হন। ১৯৮৯ সালের ডাকসু নির্বাচনে ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ থেকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন তখনকার জাসদ ছাত্রলীগের এ নেতা। ওই সময় ডাকসুতে ভিপি ছিলেন ছাত্রলীগের সুলতান মো. মনসুর আহমেদ, এজিএস ছিলেন ছাত্র ইউনিয়নের নাসিরউদ্দোজা। ডা. মুশতাক পরে ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটি থেকে পিএইচডি করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার জন্য চাকরির আবেদন করেও দলীয় দৃষ্টিভঙ্গির কারণে তিনি বারবার প্রত্যাখ্যাত হন বলে অভিযোগ রয়েছে।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful