Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / এ হারে দায় সবার

এ হারে দায় সবার

আতশবাজি প্রস্তুত ছিল। কিন্তু রাতের কালো আকাশ আলো করে জ্বলেনি তা। জয়ঢাক পড়ে রইল এক কোণে। কাঠি পড়েনি তাতে। উৎসবের মঞ্চে বাজল নৈঃশব্দ্যের গান। উল্লাসের জায়গা নিল নিস্তব্ধতা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগের ম্যাচগুলোর অদম্য-অজেয় বাংলাদেশ কাল সিরিজটা যে শেষ করল বড্ড বিবর্ণভাবে! শেষ টি-টোয়েন্টিতে তিন উইকেটে হারের পর তাই একেবারে হতচকিত পুরো দল।

এমনটা যে হওয়ার কথা ছিল না!

বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বলে নয়। পাকিস্তান-ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জয়ের ধারাবাহিকতার কারণেও নয় কেবল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে ও প্রথম টি-টোয়েন্টি জয়ের জন্যও নয় শুধু। কাল ২৪০ বলের ম্যাচের মাত্র ৫ বল বাকি থাকতেও তো জয়টা একরকম মুঠোবন্দি ছিল বাংলাদেশের। সেই জয় মুঠো গলে ফসকে গেলে হতোদ্যম হবে না কেন মাশরাফি বিন মর্তুজার দল!

সংবাদ সম্মেলনে কাল তাই বাংলাদেশ অধিনায়ক আসেন পরাজিত সেনাপতির মতো। তাঁর পাশে বসা কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহের মুখেও রাজ্যের হতাশা। ময়নাতদন্তে নাসির হোসেনের শেষ ওভার এবং এনামুল হকের টি-টোয়েন্টির সঙ্গে বেমানান ব্যাটিং ঘিরেই প্রশ্ন ধেয়ে গেল বেশি। যদিও যথার্থ অধিনায়ক-কোচের মতো ওই ক্রিকেটারদের সামনে ঢাল ধরেছেন তাঁরা।

দলের সর্বোচ্চ রান এনামুলের। তবে ওই ৪৭ রান করতে লাগিয়ে ফেলেন ৫১ বল; এর মধ্যে ২০টি ডট বল। পাক্কা ১৬ ওভার ক্রিজে থেকে তাঁর অমন ব্যাটিং বাংলাদেশকে চাপে ফেলে উল্টো। কোচ হাতুরাসিংহে তবু কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন না এনামুলকে, ‘আমি নির্দিষ্ট কারো কথা আলাদা করে বলতে চাই না। আমরা সবাই মিলেই ব্যাটিংটা ভালো করতে পারিনি। তবে এটি সত্যি, টি-টোয়েন্টিতে কেউ ৩০ বলের বেশি খেললে তাঁর স্ট্রাইকরেট ১৩০-এর বেশি হওয়াটা প্রত্যাশিত। এনামুল সেই চেষ্টা করেছিল নিশ্চয়ই, কিন্তু পারেনি।’ কোচের কথার প্রতিধ্বনি অধিনায়ক মাশরাফিতে, ‘কোচ যে স্ট্রাইকরেটের ব্যাপারটি বললেন, সেটি সত্য। ও হয়তো শটস সেভাবে খেলতে পারেনি। কিন্তু পারেনি বলে সব দোষ ওর ওপর দিচ্ছি না। মনে রাখতে হবে, এনামুল অনেক দিন পর খেলার সুযোগ পেল। আমি তাই ব্যক্তিগতভাবে কারো ওপর দোষ দিচ্ছি না। দল হিসেবেই আজ আমরা বাজে খেলেছি।’

দল হিসেবে বাজে খেলার দিনেও জয় তো প্রায় করায়ত্ত হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের। শেষ ওভারে চার উইকেট হাতে নিয়ে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। প্রথম বলে উইকেট নিয়ে সমীকরণটা স্বাগতিকদের পক্ষে নিয়ে আসেন নাসির। কিন্তু পরের চার বলে ৬, ২, ৪, ৬ রানের চারটি স্কোরিং শটে জিম্বাবুয়েকে জেতান নেভিল মাদজিভা। মাঠেই এরপর অনেকক্ষণ তোয়ালে দিয়ে মুখ ঢেকে স্তব্ধ হয়ে ছিলেন নাসির। সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য এই অফ স্পিনার পাশেই পেলেন অধিনায়ক মাশরাফিকে, ‘নাসিরের ওপর আমার আস্থা ছিল। ওকে বলেছি, চাপ না নিয়ে নির্ভার হয়ে স্বাভাবিক বোলিং করতে। এই শেষদিকে বোলিং করে ও অভ্যস্ত না। তবে আমাদের হাতে খুব একটা বিকল্প ছিল না। সে কারণে চেয়েছিলাম, নাসির নিজের মতো বোলিং করুক।’ কোচ হাতুরাসিংহে ব্যাটসম্যানদের ওপর বিরক্ত হলেও বোলারদের পারফরমেন্সে উচ্ছ্বসিত, ‘বোলিং নিয়ে আমি খুব খুশি। ওদের কারণেই শেষ ওভার পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যেতে পারি।’

টি-টোয়েন্টি সিরিজের আবহে মাশরাফি বলেছিলেন, জয়-পরাজয়ের চেয়ে দলের সঠিক কম্বিনেশন খুঁজে পাওয়াটা জরুরি। সেটি কতটা পেল বাংলাদেশ? এখনো যে বহু দূরের পথ পাড়ি দিতে হবে, সেটি স্বীকার করলেন অধিনায়ক। তবে সাকিব আল হাসান, সৌম্য সরকারদের মতো পরীক্ষিত পারফরমাররা ফিরলে কম্বিনেশন ভালো হবে বলে আশাবাদ তাঁর, ‘আমরা জানি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে এখনো ব্যালেন্স দল হয়ে দাঁড়াতে পারিনি। যখন ভালো দল হব, তখন ফলই তা বলে দেবে। এই মুহূর্তে অবশ্যই আমরা আমাদের কম্বিনেশন নিয়ে কাজ করছি। এ ছাড়া জয়ের চিন্তা তো আছেই। আশা করি সৌম্য যখন ফিট হয়ে আসবে, সাকিব দেশে ফিরবে-তখন কম্বিনেশনটা আরো ভালো হবে। তখন হয়তোবা আমরা ভালো খেলব।’

বাংলাদেশ চেয়ে আছে সেই ভবিষ্যতে। আর জিম্বাবুয়ে ভবিষ্যতের পথচলার প্রেরণা পেয়ে গেছে কালকের জয়ে। ১৯ বলে ২৮ রান করে ম্যাচ জয়ের নায়ক নেভিল মাদজিভার  উচ্ছ্বাসটা অনুমেয়। শেষ ওভারে নাসিরকে দেখেই জয়ের ছবিটা মনে মনে এঁকে ফেলেন বলে খেলা শেষে জানান তিনি, ‘নাসিরের বোলিং দেখেই আমি স্ট্রাইকে থাকতে চেয়েছিলাম। নিজের ওপর বিশ্বাস ছিল যে, ম্যাচটি জেতাতে পারব। নাসিরকে শেষ ওভার করতে দেখে নিজেকে বলেছিলাম, এবার একটি জয় নিয়েই আমি দেশে ফিরব।’ সেই জয় পাওয়ায় যারপরনাই খুশি জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক এলটন চিগুম্বুরা, ‘বাংলাদেশে আসার পর থেকেই জয়ের জন্য লড়ছিলাম। অবশেষে সেই জয় পাওয়াটা দারুণ ব্যাপার।’
জিম্বাবুয়ে জয়ের দেখা পেল অবশেষে। অবশেষে হারের তেতো স্বাদ পেল বাংলাদেশ। মাশরাফি বিন মর্তুজার দলের রূপকথার মতো কাটল যে বছর, তার শেষটা তো এমন হওয়ার কথা ছিল না!

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful