Templates by BIGtheme NET
Home / বিনোদন / এ বছর হলিউড বক্স অফিস কাঁপিয়েছে যেসব ছবি

এ বছর হলিউড বক্স অফিস কাঁপিয়েছে যেসব ছবি

২০১৫ সালে হলিউড এক শরও বেশি চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছে সারা বিশ্বের সিনেমাপ্রেমিকদের। এ বছর সারা বিশ্বে হলিউডের সিনেমার বাজার মূল্য ছিল ৬০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি। হলিউডের বছরের আলোচিত কয়েকটি সিনেমার কথা জানাচ্ছেন জাহিদ হোসাইন খান।
জুরাসিক ওয়ার্ল্ড: ১৪ বছর পরে ফিরল ডাইনোসররা
ইউনিভার্সাল পিকচার্সের জুরাসিক ওয়ার্ল্ড সিনেমাটি সারা বিশ্ব থেকে আয় করেছে ১৬৬ কোটি মার্কিন ডলার। আলোচিত জুরাসিক পার্ক সিরিজের চতুর্থ সিনেমা ‘জুরাসিক ওয়ার্ল্ড’ পরিচালনা করেন কলিন ট্রভারো। ২০০১ সালে সর্বশেষ মুক্তি পেয়েছিল এই সিরিজের ছবি ‘জুরাসিক পার্ক থ্রি’। ক্রিস প্র্যাট, ব্র্যাস হাওয়ার্ড আর ইরফান খান অভিনীত ‘জুরাসিক ওয়ার্ল্ড’ সিনেমাটি ২০১৫ সালের সর্বোচ্চ আয় করা হলিউডের সিনেমা। আর সর্বকালের সর্বোচ্চ আয়ের সিনেমার তালিকায় ‘অ্যাভাটার’ আর ‘টাইটানিক’ ছবিটির পরেই ‘জুরাসিক ওয়ার্ল্ড ছবির অবস্থান।ফিউরিয়াস সেভেন: পল ওয়াকারকে বিদায়
সিনেমা হলে আসার আগেই ‘ফিউরিয়াস সেভেন’ দর্শক মাতাবে বলে সমালোচকেরা সচেতনভাবে সবাইকে সতর্ক করে দিয়েছিলেন। সতর্ক করার কারণ ছিলেন এ ছবির প্রয়াত অভিনেতা পল ওয়াকার। পল এই সিনেমায় অভিনয় করার সময়েই এক গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেন। পলের মৃত্যুর ধাক্কা বক্স অফিসকেও নাড়া দেয়। ফিউরিয়াস সেভেন ২০১৫ সালে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আয় করা সিনেমার তালিকায় নাম লেখায়। ভিন ডিজেল, ডোয়াইন জনসন, মিশেল রড্রিগেজ আর পল ওয়াকারের এই সিনেমা সারা বিশ্ব থেকে আয় করে মোট ১৫১ কোটি মার্কিন ডলার।অ্যাভেঞ্জার্স: এজ অব আলট্রন

ফিউরিয়াস সেভেন: পল ওয়াকারকে বিদায়মার্ভেল কমিকসের সিনেমা মানেই যে আলোড়ন আর দর্শক উন্মাদনা। ২০১২ সালে দ্য অ্যাভেঞ্জার্স সিনেমার সিক্যুয়াল ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এজ অব আলট্রন’ সারা বিশ্ব থেকে আয় করে ১৪০ কোটি মার্কিন ডলার। আর যে সিনেমায় রবার্ট ডাউনি জুনিয়র ‘আয়রন ম্যান’, ক্রিস হেমসওর্থ ‘থর’, মার্ক রাফালো ‘হাল্ক’, ক্রিস ইভান্স ‘ক্যাপ্টেন আমেরিকা’ আর স্ক্যারলেট জোহানসন ‘ব্ল্যাক উইডো’ চরিত্রে থাকেন তা তো বক্স অফিস কাঁপাবেই। ইংল্যান্ড, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়ার বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং করা এ ছবিতে বাংলাদেশের চট্টগ্রামের জাহাজ নির্মাণ এলাকার দৃশ্যও যুক্ত করা হয়েছিল। ২৭ কোটি মার্কিন ডলার খরচে তৈরি এ সিনেমা পৃথিবীর তৃতীয় ব্যয়বহুল সিনেমা।
দ্য মার্শিয়ান: উদ্ভিদবিজ্ঞানীর বক্স অফিস কাঁপানোর গল্পমিনিয়নস: আজগুবি প্রাণীর গল্প
‘ডেসপিকেব্যল মি’ ছবি দিয়ে ২০১০ সালে সারা বিশ্ব মিনিয়ন জ্বরে আক্রান্ত হয়। সেই জ্বরের সর্বশেষ ‘মিনিয়নস’ ছবি। কেভিন, স্টুয়ার্ট আর বব নামের ৩ মিনিয়নের রোমাঞ্চকর অভিযান নিয়েই এই অ্যানিমেটেড সিনেমার গল্প। ইউনিভার্সাল পিকচার্স ও ইলুমিনেশন এন্টারটেইনমেন্টের এই সিনেমা আয় করেছে মোট ১১৫ কোটি মার্কিন ডলার। স্যান্ড্রা বুলক, জন হ্যাম, মাইকেল কিয়েতন বিভিন্ন মিনিয়ন চরিত্রে কণ্ঠ দেন। ‘ফ্রোজেন’ (২০১৩) ছবিটির পরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আয় করা অ্যানিমেটেড ফিল্ম ‘মিনিয়নস’।
স্টার ওয়ার্স: দ্য ফোর্স অ্যাওয়াকেন্স
এই ডিসেম্বরে দশ বছর পরে আবারও পর্দায় হাজির হয় স্টার ওয়ার্স সিনেমার জনপ্রিয় চরিত্র হান সোলো (হ্যারিসন ফোর্ড), লুকে স্কাইওয়াকার (মার্ক হ্যামিল), জেনারেল লেইয়া ওর্গানা (ক্যারি ফিশার) প্রমুখ। লুকাস ফিল্মের স্টার ওয়ার্স সিনেমার সপ্তম পর্ব ‘স্টার ওয়ার্স: দ্য ফোর্স অ্যাওয়াকেন্স’ মুক্তির দু সপ্তাহেই বক্স অফিস কাঁপিয়ে আয় করে নেয় ৮৯ কোটি মার্কিন ডলার।
ইনসাইড আউটইনসাইড আউট
২০১৫ সালের আলোচিত আরেক অ্যানিমেটেড সিনেমা ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স ও পিক্সারের ইনসাইড আউট। এই সিনেমার আয় ছিল ৮৫ কোটি মার্কিন ডলার।
স্পেকটর: বন্ডের বিদায়স্পেকটর: বন্ডের বিদায়
জেমস বন্ড সিনেমা সিরিজের ২৪তম সিনেমা ‘স্পেকটর’ ২০১৫ সালের সারা জাগানো সিনেমাগুলোর মধ্যে অন্যতম। ড্যানিয়েল ক্রেইগের বন্ড হিসেবে চতুর্থ এবং সম্ভবত শেষ সিনেমা। ২৪ কোটি মার্কিন ডলার ব্যয়ে নির্মিত এই সিনেমা পৃথিবীর ৯ম সর্বাধিক অর্থে নির্মিত সিনেমা। ক্রেইগের সঙ্গে এই সিনেমায় বন্ড গার্ল হিসেবে ‘লুসিয়া স্কিয়ারা’ চরিত্রে অভিনয় করে আলোচিত হন মনিকা বেলুচ্চি। এমজিএম/কলম্বিয়ার ‘স্পেকটর’ বক্স অফিস থেকে ৮৩ কোটি মার্কিন ডলার আয় করে।
মিশন ইম্পসিবল-রগ নেশন: ইথান হান্টের অভিযানমিশন ইম্পসিবল-রগ নেশন: ইথান হান্টের অভিযান
‘বছরে একটাই সিনেমা, একটাই ব্লকবাস্টার হিট’ নীতিতে সিনেমা উপহার দিয়ে ভক্তদের গত কয়েক বছর চমকে দিয়েছেন ‘ইথান হান্ট’ ওরফে টম ক্রুজ। ২০১৫ সালে ইথান হান্টকে ‘মিশন ইম্পসিবল-রগ নেশন’ সিনেমায় নিয়ে পর্দায় নিয়ে আসেন টম। প্যারামাউন্ট পিকচার্সের মিশন ইম্পসিবল সিনেমা সিরিজের এই পঞ্চম পর্ব ৬৮ কোটি মার্কিন ডলার আয় করে।
হাঙ্গার গেমস: মকিংজে-পার্ট টু
হলিউডের প্রিয়মুখ জেনিফার লরেন্সের ২০১৫ সালের পর্দা কাঁপানো সিনেমা ‘হাঙ্গার গেমস: মকিংজে-পার্ট টু’। ‘ক্যাটনিস এভারডিন’ চরিত্রে অভিনয় করে হাঙ্গার গেমসের চতুর্থ পর্ব ‘মকিংজে-পার্ট টু’কে নিয়ে বলা চলে একা একাই বক্স অফিসে আলোড়ন তৈরি করেন জেনিফার। লায়ন্স গেট এন্টারটেইনমেন্টের এই সিনেমাটি মুক্তির তিন সপ্তাহে আয় করেছিল ৬০ কোটি মার্কিন ডলার।
দ্য মার্শিয়ান: উদ্ভিদবিজ্ঞানীর বক্স অফিস কাঁপানোর গল্প
যে সিনেমাকে তালিকায় না রাখলে ২০১৫ সালের সিনেমার তালিকাটি অপূর্ণ থেকে যাবে, সে সিনেমার নাম— দ্য মার্শিয়ান। ম্যাট ডেমন ছিলেন এই বিজ্ঞান কল্পকাহিনির ভিত্তিতে নির্মিত ছবিটির মূল চরিত্র। ম্যাট উদ্ভিদবিজ্ঞানী ও নভোচারীর চরিত্র অভিনয় করে কাঁপিয়ে দেন বক্স অফিস। টুয়েন্টিথ সেঞ্চুরি ফক্সের এই সিনেমার আয় ৫৯ কোটি মার্কিন ডলার।
দ্য রেভেন্যান্ট: যেখানে ডিক্যাপ্রিও উন্মাদনার শেষদ্য রেভেন্যান্ট: যেখানে ডিক্যাপ্রিও উন্মাদনার শেষ
আলোচিত অভিনেতা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও কি অ্যাকাডেমি পুরস্কার পাবেন না— এমনই হতাশা আর জিজ্ঞাসায় সারা বিশ্বের কোটি সিনেমা প্রেমিককে অপেক্ষা করতে হচ্ছে সেই গত শতাব্দীর শেষ থেকে। সে প্রত্যাশায় আরও বাড়িয়ে দিয়েছে ডিক্যাপ্রিও অভিনীত ‘দ্য রেভেন্যান্ট’ সিনেমাটি। ২৫ ডিসেম্বর মুক্তি পাওয়া এই সিনেমাটি পুরো বছর ধরেই সিনেমাপ্রেমীদের আড্ডার টেবিলে ছিল ‘টক অব দ্য টাউন’; ডিক্যাপ্রিওর ভাগ্যে কি এবারে শিকে ছিঁড়বে? মুক্তির ৩ দিনেই ১৭ কোটি ডলার আয় করে ডিক্যাপ্রিওর অভিনয় আগামী অস্কার কাঁপানোরই কি ইঙ্গিত দিচ্ছে? এ প্রশ্নের উত্তর জানতে আগামী বছর পর্যন্ত অপেক্ষা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই! হলিউড রিপোর্টার, ভ্যানিটি ফেয়ার।

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful