Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / এবার চোখ আরও দূরে

এবার চোখ আরও দূরে

একটা অভিযান শেষ। এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ ফুটবলের আঞ্চলিক চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে সানজিদা-কৃষ্ণাদের চোখে-মুখে তৃপ্তির ছোঁয়া। তবে এখানেই থেমে থাকতে চান না মেয়েরা। আগামী বছর এই দলটিই খেলবে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপে। জয়টা ফুটবলারদের আত্মবিশ্বাস তো বাড়িয়ে দিয়েছেই, সাহস জোগাচ্ছে পরের টুর্নামেন্টগুলোতেও আরও ভালো করার।

বাফুফের মহিলা উইংয়ের কো-চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার এই দলটিকে অনেক দূরে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন, ‘আমি আগেই বলেছিলাম, নেপালের সঙ্গে আমাদের যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করার চিন্তাভাবনা করেছিল এএফসি। দুই মাস আগে চীনে হওয়া ওই সভায় আমি এতে জোর আপত্তি জানিয়েছিলাম। মেয়েরা যে ভালো কিছু করতে পারে, সেই প্রমাণ নেপালে দিয়েছে। আমি মাঠে বসে ওদের চেহারার মধ্যে সেই আত্মবিশ্বাসটা দেখেছি। এদের এখন এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য প্রস্তুত করব।’
মহিলা ফুটবলের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় অর্জনে ফুটবল অঙ্গনেও খুশির জোয়ার। বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন আজ খেলোয়াড়দের জন্য আর্থিক প্রণোদনার ঘোষণা দেবেন বলে আভাস দিলেন মাহফুজা, ‘সালাউদ্দিন ভাই আমাকে বলেছেন ওদের উৎসাহ দিতে একটা বড় অঙ্কের টাকা দেওয়া হবে। এর পাশাপাশি সবাইকে ব্লেজার ও অন্যান্য উপহার দেওয়া হবে।’
এত দিন মহিলা ফুটবলের জন্য ফিফা থেকে যে অনুদান পেত বাফুফে, তা দিয়ে প্রতিবছর টুর্নামেন্ট চালাতেই হিমশিম খেতে হয়েছে মহিলা কমিটিকে। এই সাফল্যের পর আর্থিক অনুদান বাড়ানোর অনুরোধ করে এরই মধ্যে ফিফাকে একটি চিঠিও দিয়েছেন মাহফুজা, ‘বাংলাদেশের মেয়েরা চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় আজ ফিফা থেকে একটি অভিনন্দনপত্র পেয়েছি। ফিফা যে অনুদান দিত, সেই অঙ্কটা বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য চিঠি লিখেছি আমরা। আশা করি, আগামী বছর থেকে আরও ভালোভাবে মহিলা ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে পারব।’
এই বছরে আর কোনো টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে না মেয়েদের দলটি। তবে আগামী ফেব্রুয়ারিতে জাতীয় দল খেলবে এসএ গেমসে। আগামী ৬-১৬ ফেব্রুয়ারি ভারতের শিলং ও গুয়াহাটিতে হবে এসএ গেমসের ১২তম আসর। জাতীয় দলের এই ক্যাম্পে সুযোগ পেয়েছে অনূর্ধ্ব-১৪ দলের নয় ফুটবলার—শামসুন্নাহার, শিউলি, নার্গিস, সানজিদা, মৌসুমি, কৃষ্ণা, মারিয়া, মার্জিয়া ও স্বপ্না। বাকি ৯ ফুটবলার আগামীকাল ফিরে যাবে যার যার বাড়িতে। বাফুফে ভবনে পুরো দলটারই আজ কাজী সালাউদ্দিনের সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে।
জাতীয় দলের ফুটবলার সাবিনা-মিরোনাদের সঙ্গে একই ক্যাম্পে সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত অধিনায়ক কৃষ্ণা। টাঙ্গাইলের কিশোরী নেপালের এই অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চায় আসন্ন এসএ গেমসে, ‘আমরা গ্রুপ পর্বের খেলায় ভুটানকে ১৬ গোল দিয়েছিলাম। তারপরও মনে হচ্ছিল, গোল কম হয়েছে। কারণ আমাদের তখন গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যটা কাজ করছিল। গ্রুপে আমরা ইরানকেও হারিয়েছি। এই অভিজ্ঞতা এসএ গেমসে কাজে লাগবে। সিনিয়র আপুদের সঙ্গে আমাদের মাঠের বোঝাপড়াটা অনেক ভালো। আশা করি, এসএ গেমসেও সোনার পদক নিয়ে আসতে পারব।’

আরও পড়ুন

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful