Templates by BIGtheme NET
Home / খেলাধুলা / চেলসিকে জয় এনে দিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরু
talashnews24, banglanews , bdnews , bdnews24 , bangladeshinews, banglasongbad
ছবি : রয়টার্স

চেলসিকে জয় এনে দিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরু

চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম লেগের ম্যাচ গত রাতে স্প্যানিশ ক্লাব আতলেতিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল চেলসি। ম্যাচটা আতলেতিকোর ‘হোম’ ম্যাচ হলেও আয়োজিত হয়েছিল রোমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্টের অ্যারেনা ন্যাশিওনালা মাঠে। আতলেতিকোর আর্জেন্টাইন কোচ ডিয়েগো সিমিওনেকে কৌশলের খেলায় পর্যুদস্ত করে মহামূল্যবান এক অ্যাওয়ে গোল নিয়ে লন্ডনে ফিরেছেন চেলসির জার্মান কোচ টমাস টুখেল। গোল করে চেলসিকে মহার্ঘ্য এই জয় এনে দিয়েছেন ফরাসি স্ট্রাইকার অলিভিয়ের জিরু।

যথারীতি ৪-৪-২ ছকে মাঠে নেমেছিল আতলেতিকো। কাগজে-কলমে ৪-৪-২ দেখানো হলেও রক্ষণভাগে মারিও হার্মোসো, ফেলিপে ও স্তেফান সাভিচের মতো তিনজন সেন্টারব্যাক উপস্থিতি ছকটাকে প্রায় সময়েই ৩-৫-২ করে দিচ্ছিল, যেখানে দুই উইংব্যাক হিসেবে খেলছিলেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার মার্কোস ইয়োরেন্তে ও ফরাসি উইঙ্গার টমাস লেমার। ওপরে লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে আক্রমণসঙ্গী হয়েছিলেন পর্তুগিজ আক্রমণাত্মক মিডফিল্ডার জোয়াও ফেলিক্স। ওদিকে সিমিওনের কৌশলকে হারানোর জন্য টুখেল কাগজে-কলমে ৪-৩-৩ ছকে নামলেও প্রায় সময় সে ছকটাও আতলেতিকোর মতো ৩-৫-২ কিংবা ৩-৪-৩ এ রূপ নিচ্ছিল। যেখানে সেন্টারব্যাক হিসেবে খেলেছেন সেজার আজপিলিকুয়েতা, আন্তোনিও রুডিগার ও আন্দ্রেয়া ক্রিশ্চিয়ানসেন; দুই উইংব্যাক হিসেবে মার্কোস আলোনসো ও ক্যালাম হাডসন-অদয়। আক্রমণভাগে জিরুকে সামনে রেখে একটু নিচে নেমে বাঁ দিকে খেলছিলেন জার্মান স্ট্রাইকার টিমো ভেরনার।

প্রথম থেকেই গোল করার বেশ কিছু সুযোগ পেয়েছিল আতলেতিকো। ১৪ মিনিটে লুইস সুয়ারেজের পাস থেকে ট্যাপ ইন করে গোল করার সহজ সুযোগ নষ্ট করেন টমাস লেমার। ঠিক পরের মিনিটেই একই ধরনের সুযোগ নষ্ট করে চেলসি। ৩৯ মিনিটে ভেরনারের একটা জোরালো শট সেভ করে আতলেতিকোকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক ইয়ান ওবলাক। খেলার গতিপথ চেলসিই নিয়ন্ত্রণ করছিল, ওদিকে বলের দখল নিতেই হাপিত্যেশ করছিলেন সুয়ারেজরা। শেষমেশ ৬৮ মিনিটে কপাল খোলে চেলসিরই। দুর্দান্ত এক বাইসাইকেল কিকে দলকে এগিয়ে দেন জিরু।

প্রথমে অফসাইডের কারণে গোলটা বাতিল বলা হলেও শেষে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে প্রাপ্য গোলটা বুঝে নেয় চেলসি। পরে খেলোয়াড়-বদল করেও নিজেদের ভাগ্য বদলাতে পারেনি আতলেতিকো। মহামূল্যবান এক অ্যাওয়ে গোল নিয়েই ঘরে ফেরে লন্ডনের দলটা।

ওদিকে লাৎসিওকে রীতিমতো নাকাল করে ছেড়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। প্রথমার্ধেই রবার্ট লেফানডফস্কি, জামাল মুসিয়ালা ও লিরয় সানের গোলে এগিয়ে গিয়ে ম্যাচটা নিজেদের পকেটে পুরে নেয় বায়ার্ন। দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটে লাৎসিও সেন্টারব্যাক ফ্রান্সসেস্কো আসেরবির আত্মঘাতী গোলে ব্যবধানটা আরও বাড়ে। দুই মিনিট পর আর্জেন্টাইন উইঙ্গার হোয়াকিন কোরেয়ার গোলটা ব্যবধানই কমিয়েছে শুধু। শেষে আর গোল হয়নি।

প্রথম লেগ শেষে তাই সুবিধাজনক অবস্থানে আছে ২০১১-১২ চ্যাম্পিয়নস লিগের দুই সেমিফাইনালিস্ট চেলসি ও বায়ার্ন।

 

অনলাইন ডেস্ক ।।

 

 

About admin

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful